বান্দরবানে ৫০তম গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করেন বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি

100 Views

মোঃরেজাউল করিম রাজু,দৈনিক নোয়াখালী সময় ডট.কমঃবাংলাদেশ জাতীয় স্কুল, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা ক্রীড়া সমিতির বান্দরবান জেলা পর্যায়ে ৫০তম গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার সমাপনী খেলা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকালে বান্দরবান জেলা শিক্ষা অফিসের আয়োজনে বান্দরবান জেলা স্টেডিয়ামে এই ৫০তম গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার সমাপনী খেলা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।অনুষ্ঠানে খেলোয়াড়দের হাতে পুরস্কার তুলে দেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।এসময় সমাপনী খেলা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক শাহ্ মোজাহিদ উদ্দিন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে খেলোয়াড়দের হাতে পুরস্কার তুলে দেন পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।সমাপনী দিনে ফুটবল প্রতিযোগিতায় বান্দরবান সদর উপজেলার বীর বাহাদুর স্কুল এন্ড কলেজ ফুটবল দল ও লামা সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় ফুটবল দলের মধ্যে খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলায় বীর বাহাদুর স্কুল এন্ড কলেজ ফুটবল দল ১ গোলে লামা সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় ফুটবল দলকে হারিয়ে জয় লাভ করে।এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক উম্মে কুলসুম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃশাহ আলম, পৌরসভার মেয়র মোঃসামসুল ইসলাম, জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃফরিদুর আলম হোসাইনী, প্রেসক্লাবের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বাচ্চু সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও ক্রীড়াপ্রেমীরা উপস্থিত ছিলেন।শেষে ৫০তম গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উপলক্ষ্যে বান্দরবানের ৭টি উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিযোগিদের ২দিন ব্যাপী অনুষ্ঠিত কাবাডী, হ্যান্ডবল, সাতার, ফুটবল, দাবাসহ বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ীদের পুরস্কার প্রদান করেন পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।

বাংলাদেশ গেমসে রোইংয়ে সেরা ঢাকার কেরানিগঞ্জ

137 Views

নজির উল্যাহ, দৈনিক নোয়াখালী সময় ডট কম: বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমসে রোইংয়ে সেরা হয়েছে কেরানিগঞ্জ। পুরুষ এবং নারী উভয় বিভাগেই স্বর্ণ পদক জিতেছে তারা। শুক্রবার (০৯ এপ্রিল) রাজধানীর হাতিরঝিলে অনুষ্ঠিত হয় দিনব্যাপী রোইং ইভেন্ট। পুরুষ ইভেন্টে কেরানিগঞ্জ আলী নগর রোইং ক্লাব আর নারীদের বিভাগে স্বর্ণ জিতেছে কেরানিগঞ্জ চুনকুটিয়া রোইং ক্লাব।নারীদের বিভাগে অংশগ্রহণকারী তিনটি দলই ঢাকার। রৌপ্য জিতেছে ইউনিভার্সেল রোইং ক্লাব এবং ব্রোঞ্জ গিয়েছে নিউ ইয়ংস্টার রোইং ক্লাবের কাছে। একটি নৌকায় বৈঠা হাতে ছিলেন ছয় নারী রোয়ার।স্বর্ণজয়ী দলের দলপতি চঞ্চলা রায় পদক পেয়ে খুশির কথা জানিয়েছেন। তবে অনুশীলনের সুযোগ পেলে বৈঠা হাতে আরও ভালো করতে পারতেন বলে মনে করেন এই রোয়ার।বাংলাদেশ রোইং ফেডারেশনের নির্বাহী সদস্য আজমেরী বেগম মুন্নি লকডাউনের মাঝে বঙ্গবন্ধুর নামে করা গেমস সফল হওয়ায় বেজায় খুশি। রোইংয়ের ভবিষ্যৎ নিয়েও আশাবাদী তিনি।পুরুষদের বিভাগে অংশ নিয়েছে পাঁচ দল। স্বর্ণজয়ী আলী নগর রোইং ক্লাবের দলপতি মনির হোসেন পদক জয় করতে পেরে উচ্ছ্বসিত। তিনি বলেন, ‘করোনা শুরু হওয়ার পর গত দুই বছর পানিতে বৈঠা হাতে নামা হয়নি। ঐতিহাসিক এই গেমসে খেলতে পেরে সরকার এবং ফেডারেশনের কাছে কৃতজ্ঞ।’আগামীতে আরও বড় আসরে দেশের পতাকা হাতে খেলার স্বপ্ন দেখেন মনির। পুরুষদের বিভাগে রৌপ্য জিতেছে নিউ গাজী ক্লাব আর ব্রোঞ্জ গেছে বরিশাল রোইং ক্লাবের কাছে। ছেলেদের দলে বৈঠা হাতে ১০জন করে রোয়ার ছিলেন।

 

বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম হামিদুল হক বকুল স্মৃতি গোল্ডকাপ ব্যাডমিন্টন টুর্ণামেন্টে সম্মাননা ক্রেস্ট পুরস্কার

350 Views

নাসির উদ্দিন মাহমুদ, এডিটর ডেইলী নোয়াখালী সময় ডট কম: নোয়াখালীতে বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম হামিদুল হক বকুল স্মৃতি গোল্ডকাপ ব্যাডমিন্ট টুর্ণামেন্টের পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান হয়েছে। গতকাল রাতে নোয়াখালী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন টুর্ণামেন্টের পৃষ্ঠপোষক, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম হামিদুল হক বকুলের ছেলে একরামুল হক বিপ্লব। নোয়াখালী পৌর সভার প্যানেল মেয়র রতন কৃষ্ণ পালের সভাপতিত্বে ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফজলুল হক সুজনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম সামসুদ্দিন জেহান, জেলা ক্রিড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু, উপজেলা আওযামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান, জেলা স্বাচিপ সভাপতি ডাঃ ফজলে এলাহী খান, সাধারণ সম্পাদক ডাঃ মাহবুবুর রহমান, চীপ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট কোর্টের পিপি অ্যাডভোটেক আলতাফ হোসেন, সাংবাদিক মনিরুজ্জামান চৌধুরী, সাবেক ছাত্রনেতা নাছির উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক মিঠুন ভট্ট প্রমুখ। অনুষ্ঠানে টুর্ণামেন্টের চ্যাম্পিয়ন অয়ন আরিয়ান টু স্টার এবং রানার্স আপ জুবলি ব্রাদার্সে মাঝে ক্রেস্ট এবং অতিথিদেরকে সম্মাননা স্মাররক প্রদান করা হয়। তিন মাসব্যাপী টুর্ণামেন্টে ৩২টি দল অংশগ্রহণ করে।

মাইজদীতে বঙ্গবন্ধু টি-২০ ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের উদ্বোধনে ডিসি

137 Views

নাসির উদ্দিন মাহমুদ, এডিটর ডেইলী নোয়াখালী সময় ডট কম: নোয়াখালী :জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে “বঙ্গবন্ধু টি-২০ ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট” এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে।বুধবার দুপুরে নোয়াখালী জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে ও গ্লোব সফট ড্রিংকসের পৃষ্ঠপোষকতায় নোয়াখালীর শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে এ টুনামেন্টের উদ্বোধন করা হয়। জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন করেন, জেলা প্রশাসক খোরশেদ আলম খান। এসময় জেলা ক্রীড়া সংস্থার সচিব সালাহ উদ্দিন সবুজের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন। বঙ্গবন্ধু টি-২০ ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের জেলার ১২টি দল অংশগ্রহন করছে। উদ্বোধনী খেলায় ব্রাদার্স ইউনিয়ন ও বেগমগঞ্জ ক্রিকেট একাডেমি অংশ নেয়।

বাফুফে নির্বাচনে সদস্য পদে আবদুল ওয়াদুদ পিন্টুকে দলে দলে ভোট দিন

214 Views

নাসির উদ্দিন মাহমুদ, দৈনিক নোয়াখালী সময় ডট কম: আবদুল ওয়াদুদ পিন্টুকে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারশনে কেন দরকার? এ প্রশ্নের একটাই উত্তর। ফুটবলের উন্নয়নের জন্য দরকার। নোয়াখালীর ক্রীড়াঙ্গনের গর্ব আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু আপাদমস্তক একজন ফুটবল প্রেমি। নিজে ছিলেন প্রাক্তন ফুটবলার, ফুটবল খেলাকে যিনি হৃদয়ে ধারণ করেছেন। বর্তমান সময়ে জনপ্রিয় খেলা ক্রিকেট হলেও তিনি সবসময় ফুটবল খেলাকেই জনপ্রিয়তার তুঙ্গে স্থান দিয়েছেন। একজন খেলা পাগল মানুষ আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু। বাফুফে জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে অনেক আগেই জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনকে আলাদা করে দিয়েছে। উদ্দেশ্য ছিলো ফুটবলকে জনপ্রিয় থেকে জনপ্রিয় করে তোলা হবে। কিন্তু হয়েছে উল্টো! ফুটবল এখন জনপ্রিয়তার বিচারে একদম তলানীতে ঠেকেছে। তবুও তিনি নোয়াখালীর ফুটবল খেলার উন্নয়নে ব্যাপক অবদান রেখেছেন। যেটি নোয়াখালীর যে কোন ফুটবলারকে জিজ্ঞেস করলেই অনাসায়ে স্বীকার করবে।  ফেডারেশন থেকে জেলা পর্যায়ে খুব বেশি টুর্নামেন্টের আয়োজনের উদ্যোগ গ্রহণ করা না হলেও তিনি নিজ উদ্যোগে নোয়াখালীতে ফুটবলকে জাগিয়ে রেখেছেন। যার ফলশ্রুতিতে তিনি এবার নোয়াখালী জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতির দায়িত্ববার ও পেয়েছেন। মহামারী করোনকালে আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল ক্রীড়াবিদদের পাশে থেকেছেন, চেষ্টা করেছেন যথাসাধ্য সহযোগিতার। নোয়াখালীতে জেএমএস ফুটবল লীগ আয়োজনেরও সফল উদ্যোক্তা তিনি। সবকিছু মিলিয়ে জনপ্রিয়তার তলানিতে থাকা ফুটবলকে নোয়াখালীতে প্রাণের সঞ্চার দিয়ে রেখেছেন তিনি। মাত্র এইবার এই প্রাণের জোয়ার সারা বাংলাদেশে ছড়িয়ে দিতে চান তিনি। আজন্ম ফুটবল খেলা পাগল মানুষটি এবার বাফুফে নির্বাচন ২০২০ এ বাংলাদেশ জেলা ও বিভাগীয় ফুটবল এসোসিয়েশন এবং বাংলাদেশ ক্লাব এসোসিয়েশন মনোনীত সমন্বয় পরিষদ প্যানেল থেকে সদস্য প্রার্থী হয়েছেন তিনি। তার ব্যালট নং ৩। সদস্য পদে নির্বাচিত হয়ে তিনি ফুটবলের জন্য কাজ করে যেতে চান। ভোটার তথা দেশবাসীর দোয়া চেয়েছেন আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু।